আজ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সময় : দুপুর ১:০২

বার : শুক্রবার

ঋতু : হেমন্তকাল

সাফ ক্লাব কাপ ফুটবলারদের জায়গা আরও বাড়াবে: কাজী নাবিল

সাফ ক্লাব কাপ ফুটবলারদের জায়গা আরও বাড়াবে: কাজী নাবিল

সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) বার্ষিক কংগ্রেস আজ (শনিবার) হয়ে গেলো। সভাতে বাফুফের পাশাপাশি সাফেও টানা চতুর্থবারের মতো সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন কাজী সালাউদ্দিন। সেখানে সাফ ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সামনের দিকে এই প্রতিযোগিতা হলে খেলোয়াড়দের ভালো অভিজ্ঞতা হবে বলে জানিয়েছেন বাফুফের অন্যতম সহ-সভাপতি ও জাতীয় টিমস কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ।

সভা শেষে কাজী নাবিল সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘যদি সাফের দেশগুলোর ক্লাব নিয়ে প্রতিযোগিতাটি আয়োজন করা যায়, তাহলে আমাদের ফুটবলারদের খেলার জায়গা আরও বাড়াবে, অভিজ্ঞতাও বাড়বে। যদি এক দেশ থেকে একাধিক ক্লাব খেলে, তাহলে খেলোয়াড়ও আরও বেশি সুযোগ পাবে।’

সাফ ক্লাব কাপ অনেক দিন ধরেই আলোচনায়। তবে সময় ও স্পন্সর সংকটের কারণে হয়ে ওঠেনি। আবাহনী লিমিটেডের ভারপ্রাপ্ত ডিরেক্টর ইনচার্জ কাজী নাবিল মনে করছেন, ‘আমাদের চেষ্টা করতে হবে ক্লাব কাপ আয়োজনের জন্য সময় বের করার। এটা বের করা কঠিন বলেই এতদিন প্রতিযোগিতাটি আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। এখানে মূলত দুটি বিষয় খুব দরকারি; প্রথমত, ক্লাবগুলো খেলার জন্য অ্যাভেলেবল থাকা এবং দ্বিতীয়ত, পৃষ্ঠপোষকতা। এগুলো যদি সাফ মেলাতে পারে, তাহলে প্রতিযোগিতাটি হবে।’

সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে আয়োজনেরও পরিকল্পনা করছে সংস্থাটি। অর্থাৎ, এক দেশে প্রতিযোগিতাটি না হয়ে একাধিক দেশে হবে। তবে কাজী নাবিলের মতে এক ভেন্যুতে হলে ভালো হবে, ‘আমার মনে হয়, এভাবে সাফ আয়োজন করা কঠিন হবে। যেকোনও এক ভেন্যুতে হলে সেটা অনেক বেশি সহজ হবে, সময়ের সাশ্রয় হবে।’

ইরাক ফুটবল দল বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলতে চাইছে। বিষয়টি গণমাধ্যমে জেনেছেন কাজী নাবিল। তবে এই মুহূর্তে ইরাকের বিপক্ষে খেলাটা সমীচীন হবে কিনা, তা ভেবে দেখতে বলেছেন তিনি, ‘ওদের (ইরাক) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আমাদের মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে জানিয়েছে। তারা যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়কে এ তথ্য পাঠিয়েছে। বিষয়টি এখনও আমাদের কাছে আসেনি। হয়তো আগামীকাল (রবিবার) সেটি আসবে। তখন আমরা ভেবে দেখবো এটা কতটুকু বাস্তবায়নযোগ্য। মনে রাখতে হবে, ইরাক ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে আমাদের চেয়ে ১২০ ধাপ এগিয়ে। আমাদেরকে চিন্তা করে দেখতে হবে, এ মুহূর্তে তাদের বিপক্ষে আমাদের খেলাটা প্রযোজ্য কিনা।’

আগামী সেপ্টেম্বরে পরবর্তী ফিফা উইন্ডো আছে। বাংলাদেশ তা কাজে লাগাতে চায়। কাজী নাবিল বলেছেন, ‘কিছুদিন আগে আমরা মালয়েশিয়াতে খেলে এলাম। তাদের বিপক্ষে খেলতে আমাদের কোনও আপত্তি নেই। এজন্য ফিফা উইন্ডোতে সময়টা বের করতে হবে। এছাড়া শিগগিরই আমরা সভায় বসবো। কোন দলের বিপক্ষে খেলবো তা ঠিক করে ফেলবো। সেটা নিজেদের মাঠে কিংবা বাইরেও হতে পারে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category